রবিবার, ০৭ জুন ২০২০, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নাগরপুরে ঈদের আগে আরো ৫ হাজার কর্মহীন পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে সরকার ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীন পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী দিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এ্যাপোলো গাইবান্ধায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৫ কোয়ারেন্টাইনে ৩১০ জন হোসেনপুরে আরও ৩ জন করোনা আক্রান্ত। হোসেনপুর হাট বাজারে নকল বনফুল সহ ভেজাল সেমাইয়ের সয়লাভ ঠাকুরগাঁওয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারি খাদ্য গুদামে ধান চাল ক্রয়ে সংগ্রহ অভিযান শুরু পলাশবাড়ীতে বসতবাড়ীতে হামলা ও মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে ও প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন গাইবান্ধায় করোনা সন্দেহে নতুন ৮৩ জনসহ হোম কোয়ারেন্টাইনে ৩১০ জন সাদুল্যাপুরে দূর্বত্তদের দেয়া আগুনে ১৪টি খড়ের পুঞ্জ ও ৪টি বসতবাড়ী পুড়ে ছাই সরকারের অর্থ সহায়তাপ্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশের দাবিতে গাইবান্ধায় কমিউনিস্ট পার্টির অবস্থান কর্মসূচী

ভিসিকে আবরারের বাড়িতে ঢুকতে দেয়নি এলাকাবাসী

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৯৫ বার সংবাদটি ওয়েব থেকে শেয়ার

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে হত্যাকাণ্ডের তিন দিনের দিন কুষ্টিয়ায় গিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। ৯ অক্টোবর বুধবার আবরারের কুষ্টিয়ার বাড়িতে পৌঁছালে সেখানে তাকে ঢুকতে দেয়নি বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

স্থানীয় লোকজনের প্রতিরোধের মুখে ভিসি পালিয়ে এসেছেন। বুধবার বিকেল ৫টার দিকে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের গাড়িতে ওই এলাকা ত্যাগ করেন তিনি।

এর আগে বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কুমারখালী উপজেলায় রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান উপাচার্য। পরে তিনি আবরারের কবর জিয়ারত করেন। তবে তার বাড়িতে ঢুকতে পারেননি উপাচার্য।

এর আগে উপাচার্য আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ ও ভাই আবরার ফায়াজসহ সবাই মিলে কবর জিয়ারত করেন। পরে আবরারের ভাই ও বাবার প্রশ্নবানে জর্জরিত হন উপাচার্য। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল, উপাচার্য কেন ওই হত্যাকাণ্ডের পরপর সেখানে উপস্থিত হননি। এখন কেন এসেছেন?

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল ৫টার দিকে আবরারের মা রোকেয়া খাতুনের সঙ্গে দেখা করার জন্য রওনা দেন উপাচার্য। একই সড়কের পাশে আবরারের কবর ও পৈতৃক ভিটা। কুমারখালী থেকে যেতে প্রথমে কবরস্থান পড়ে। পরে আধা কিলোমিটারের মাথায় ওই বাড়ি। কিন্তু উপাচার্যের যাওয়ার কথা শুনে স্থানীয় শত শত নারী-পুরুষ আবরারদের গ্রামের বাড়ির সামনের সড়কে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপাচার্যকে ঘিরে ধরেন। এ পরিস্থিতিতে আবরারের মায়ের সঙ্গে দেখা না করে উপাচার্য পুলিশ প্রহরায় জেলা প্রশাসকের গাড়িতে রায়ডাঙ্গা গ্রাম ছাড়েন।

স্থানীয়রা জানান, আবরারের বাড়িতে ঢোকার আগে উপাচার্যকে বাধা দেয় স্থানীয় গ্রামবাসী। আবরারের বাড়ি ঢোকার মুখে ভিসির গাড়ির সামনে শুয়ে পড়েন নারীরা। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে এক নারী ও আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ পাঁচজন আহত হন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
২,৬৩৫
৩৫
৫২১
১২,৪৮৬
সর্বমোট
৬৩,০২৬
৮৪৬
১৩,৩২৫
৩৮৪,৮৫১

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৬৩,০২৬
সুস্থ
১৩,৩২৫
মৃত্যু
৮৪৬

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬,৯৭৩,৪২৭
সুস্থ
৩,৪১১,১১৮
মৃত্যু
৪০২,০৪৯

এই ওয়েবসাইটে কোনও তথ্য, চিত্র, অডিও বা ভিডিও অন্য ও কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডনীয়।

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © desherbarta24.com 2017-2020

ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jpthemes2281