12:20 PM, 21 May, 2024

ওদের প্রতি দায়িত্বশীল ও মানবিক আচরণ করুন

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে বিভিন্ন লোক জনবল, বাহিনী ও সংগঠন এর মতোই সাড়া বাংলাদেশে আইনের সেবক পুলিশও জনগনের প্রশংসা কুড়িয়ে আসছেন। এই প্রশংসা থেকে পিছিয়ে নেই পুলিশ প্রশাসনও। কিন্তু ইদানীং পুলিশ প্রশাসন প্রশংসার পাশাপাশি সমালোচনার পাত্রও হচ্ছেন। ভাল কাজ করলে স্যালুট, আর খারাপ কাজ করলে ঘৃণা আসবে এটাই স্বাভাবিক।

বর্তমান লকডাউন উপেক্ষা করেও যারা রাস্তায় অটো, বাইক, রিকশা,সাইকেল নিয়ে বের হয় ওরা কেউ জরিনা বা রূপবানের নৃত্য দেখতে বের হয়না। পেটের ধান্ধায়, ক্ষুধার জ্বালায় ওরা রাস্তায় আসে। ওরা কেউ হাই সোসাইটি পরিবারের লোক নয়। কেউ ভাড়ায় অটো চালায়, কেউ সমিতি,এনজিও থেকে লোন নিয়ে কিনে চালায়। সবাই দিন আনে দিন খাওয়া লোক। একদিন অটো নিয়ে বের না হলে ওদের চুলায় আগুন ধরবেনা এমন জ্বলন্ত উদাহরণ আছে।নিজের এবং পরিবারের মুখে খাবার তুলে দেবার জন্য এই মানুষগুলো অটো,বাইক নিয়ে বের হয়।কিন্তু এদের সাথে রাস্তাঘাটে ও বিভিন্ন যায়গায় করা হচ্ছে অমানবিক আচরণ। গরীব বেচারার গাড়ির সবগুলো চাকাই লোহা দিয়ে ছিদ্র তো করা হচ্ছেই সাথে বড় মোটা বেত দিয়ে ওই ব্যক্তিদেরকে শেয়াল কুকুরের মত পিটানো হচ্ছে। কেন? ওরা কি মানুষ নয়? এগুলো কি মানবাধিকার লঙ্ঘন নয়? লকডাউন মানে কি গায়ে হাত তোলা? চাকা ছিদ্র করে দেয়া? একটা অটোর তিনটা ও অতিরিক্ত সহ ৪টা চাকার ৪ টা টায়ার এবং টিউবের কয় হাজার টাকা মূল্য তা কিছুটা হলেও আন্দাজ করার কথা। করোনার নামে এই গরীব বেচারাদের এত টাকা লোকসান করার মানে কি? বাংলাদেশ সরকার কি বলে দিয়েছে এসব করার জন্য?

যারা সরকারি চাকুরী করে তাদের এই পরিস্থিতিতেও কোন সমস্যা নেই। যাই হয়ে যাকনা কেন মাস শেষে বেতন আছেই এবং তিনবেলা ঘরে খাবার আছেই। যদি একটা মাস বেতন না দেয়া হয় তখন? নিজের অবস্থা কি হবে, পরিবারের অবস্থা কি হবে আর ঘরের অবস্থা কি হবে একবার ভাবুন। আপনাদেরকে ৩০ দিনের খাবার ও যাবতীয় খরচ একদিনে দিয়ে দেয়া হয়। আর এই মানুষগুলো? প্রতিদিনের খাবার প্রতিদিনই শ্রম দিয়ে কামাই করে নিতে হয়।

করোনার ভয় কার না আছে?এই মরণঘাতী ভাইরাসের ভয় সবারই আছে। এমনিতেই কেউ রাস্তায় আসেনা জীবিকার তাগিদে বের হয়না। পেটের খিদার কাছে সবকিছুই অসহায়।লকডাউন মানেই যে ওদের মারতে হবে চাকা ছিদ্র করে দিতে হবে তা কিন্তু নয়, আর এমন কোন নীতিমালাও নেই।
ওরা মানুষ, ওরা আপনার আমাদেরই ভাই,ভাতিজা,সন্তান,চাচা ও বন্ধুবান্ধব। ওদের প্রতি অমানবিক নয়, দায়িত্বশীল ও মানবিক আচরণ করুন। মানুষ হিসেবে মানবতার পরিচয় দিন। আপনাদের প্রতি মানুষের যে সম্মান ও ভালবাসা আছে তা ধরে রাখুন। যে প্রশংসায় ভাসছেন তা সামান্য ঈর্ষান্বিত হয়ে নষ্ট করবেননা।

লেখক পরিচিতিঃ সাংবাদিক ও কলামিস্ট
এস এম মিজানুর রহমান মামুন
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক
দেশেরবার্তা টোয়েন্টিফোর ডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *