বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় একশ’ জন হতদরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে হুছাইনীয়া দরিদ্র কল্যাণ ফাউন্ডেশন কি‌শোরগঞ্জ এর হোসেনপুরে ষো‌লোআনা ফাউ‌ন্ডেশ‌নের মাস্ক ও গ্লাভস বিতরণ কি‌শোরগঞ্জ এর পাকু‌ন্দিয়ায় ষো‌লোআনা ফাউ‌ন্ডেশ‌নের মাস্ক ও গ্লাভস বিতরণ ‌কি‌শোরগ‌ঞ্জে করোনা ভাইরাস রোধে জীবাণু নাশক ঔষধ স্প্রে ক‌রে ছাত্রদল বাড়বে ছুটি, নববর্ষের অনুষ্ঠান বন্ধ পলাশবাড়ীতে পৌরসভার উদ্যোগে জোড়ালোভাবে জিবানুনাশক স্প্রে কার্যক্রম মুরাদনগর সরমাকান্দায় পূর্বশত্রুতার জেরে নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর থানায় মামলা করোনায় মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়িয়েছে ক‌রোনা ভাইরাস স‌চেতনতায় মিরপু‌রে মাস্ক বিতরণ ক‌রে‌ছে ষো‌লোআনা ফাউ‌ন্ডেশন করোনা: ৯ কোটি টাকা দান করলেন মেসি

গাইবান্ধার চরাঞ্চলে পেঁয়াজের ব্যাপক ফলন

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৫ মার্চ, ২০২০
  • ৪৫ বার শেয়ার
গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি:
গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা বেষ্টিত চরাঞ্চলগুলোতে এবারে পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। পিয়াজের মূল্য বৃদ্ধির কারণে চরাঞ্চলের চাষিরা পেঁয়াজ চাষে ঝুঁকে পড়েছে বেশী। তেমনি আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবং রোগ বালাই কম হওয়ায় পেঁয়াজের ফলনও হয়েছে বেশী।

কৃষি বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, অত্যন্ত লাভজনক ফসল হিসেবে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট মাঠ কর্মীদের উফসি বারি-১ পেঁয়াজ জাতের পেঁয়াজ উৎপাদন করে দেশের পেঁয়াজ ঘাটতি অনেকটাই পূরণ করা সম্ভব হবে। প্রযুক্তি নির্ভর এই পেঁয়াজ চাষে দ্বিগুন ফলন, বাজারে চাহিদা ও মূল্য বেশি হওয়ায় বেশ খুশি চাষীরা। এ কারণে গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা বিস্তীর্ণ চরাঞ্চলে উদ্যান তাত্ত্বিক মশলা জাতীয় ফসল হিসাবে বারি পেঁয়াজ-১ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে চাষীরা। কৃষি বিভাগ সূত্রে আরও জানা গেছে, দেশের শস্য ঘাটতি মেটাতে কৃষি গবেষনা বিভাগ কৃষকদের প্রযুক্তিগত পরামর্শ সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এতে করে চাষীরা অর্থনৈতিক লাভবানের পাশাপাশি দেশের খাদ্য উৎপাদনে ভূমিকা রাখছে। কম খরচে অধিক ফলন পাওয়ায় চরাঞ্চলের পতিত জমিতেও সহজ পদ্ধতিতে চাষাবাদের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মাসুদুর রহমান বলেন, পেঁয়াজ চাষে কৃষকদের প্রনোদনা ও পরামর্শ সেবা দেয়া হচ্ছে যাতে করে উৎপাদনে দেশ স্বয়ং সম্পূর্ণতা অর্জন করতে পারে।

উল্লেখ্য,গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা, ফুলছড়ি, সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র-যমুনার চরাঞ্চলে বন্যা পরবর্তী ফসল হিসাবে প্রায় ১০ হাজার হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে উফসি বারি-১ জাতের পেঁয়াজ চাষ করেছে। এই পেঁয়াজে হেক্টর প্রতি কোন কোন জমিতে ৫০-৬০ মণ পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে। জেলায় নদী ও চরাঞ্চলে উদ্যান তাত্ত্বিক ফসল গবেষণা জোরদারকরণ এবং চর এলাকায় উদ্যান মাঠ ফসলের প্রযুক্তি সেবা নিয়ে পেঁয়াজের চাষ ক্রমেই বাড়ছে। এতে বর্তমান বাজার মূল্য অনুযায়ী বিঘা প্রতি ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন চাষীরা বলে কৃষি বিভাগ ধারণা করছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই বিভাগের আরও খবর
এর ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও ৪র্থ বর্ষে পদার্পণ আর মাত্র বাকি
07দিন 16ঘন্টা 52মিনিট 22সেকেন্ড

বাংলাদেশে কোরোনা

মোট

৫১

জন
নতুন

জন
মৃত

জন
সুস্থ

২৫

জন

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৫১
সুস্থ
২৫
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
৮৫৭,২৯৯
সুস্থ
১৭৭,১৪১
মৃত্যু
৪২,১১৪

এই ওয়েব সাইটের যে কোন তথ্য, ছবি, অডিও কিংবা ভিডিও অন্য ওয়েব সাইটে প্রকাশ আইনত দন্ডনিয় অপরাধ।

© All rights reserved © desherbarta24.com 2017-2020

ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jpthemes2281