,


সময়োপযোগী কবিতাঃ ধর্ষণ যখন দর্শন

ধর্ষণ যখন দর্শন 

কামরুজ্জামান বাবু 

আট দিনে ধর্ষিত একচল্লিশ শিশু
এটা কোন ব্যাপারই না ! আসলেই না ।
ধর্ষণ শেষে থেতলে দেয়া মাথা
অযথাই তোল শুধু প্রতিবাদের বায়না।
এগুলো না আমার বঙ্গদেশে মানায় না ।

এটা একটা শৈল্পিক দর্শন- ধর্ষণ
শিল্পীরা তো থেমে থাকার পাত্র নয় !
তোমার এত্তো আহাজারি, চক্ষুজল বর্ষন
মোটেই তা শৈল্পিকতায় কাম্য নয়,
এগুলো না আমার বঙ্গদেশে সাধারন বিষয়।

তনু, খাদিজা, নুসরাত- ঘটনাটা শোন-
এটা শুধু তাদের নামে দুর্নাম রাটানো,
ওরা বলো আমার তোমার কে-ই বা হয় ?
শুধু শুধু মানববন্ধন, পেছনে হায়নার ভয়।
এগুলো না আমার বঙ্গদেশে কোন ব্যাপার নয়।

হতো যদি এসব কোন রাঘব বোয়ালের বাচ্চা,
কিংবা যদি হতো কোন ক্ষমতাবানের কেউ-
দেখতে তুমি ফাসির মঞ্চে ধর্ষকদের ঢেউ,
ওরা তো খুব সাধারণ, সাধারণ বাচ্চা কাচ্চা
এগুলো না আমার বঙ্গদেশে অহরহই হয়।

মানববন্ধন মনুষের, সাধারণের চক্ষুজল মিথ্যের জাল
কি হয়েছে, কি করেছে , তারাই বাপের ব্যাটা-
তাদের কপালে কার সাহস মারতে পারে ঝাঁটা !
একটা যদি ফাঁসি ঝোলানো ছবি হতো ভাইরাল !
এগুলো না আমার বঙ্গদেশে কখনোই হবার নয়।

একটা কাজই আমারা করতে পারি- কেটে দিই ওটা,
শ্লোগান, বাদ প্রতিবাদ বাদ দিয়েই যাই, কি বলো ?
আসো, আমরা হয়তো পুরুষ হই নয়তো তৃতীয় লিঙ্গ, চলো-
আগুন দিয়ে পোড়াতে পারি, আর নয় চোখ ছলছল
আমার বঙ্গদেশে দিতে আমরাই পারি লাল সবুজের ফোঁটা।

image_pdfimage_print




     এই বিভাগের আরও খবর

আমরা আছি ফেসবুকে