,


বাংলাদেশের কাছে ভারত চায় ‘৫২ একর’

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আগরতলা বিমানবন্দর (বর্তমান মহারাজা বীর বিক্রম বিমানবন্দর) সম্প্রসারণ করতে বাংলাদেশের ‘৫২ একর’ জমি চেয়েছে ভারত। দেশটির সংবাদমাধ্যম ‘লাইভমিনট’ তাদের একটি প্রতিবেদনে এমন খবর দিয়েছে। তবে বাংলাদেশের কাছে ভারতের জমি চাওয়ার সত্যতা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে জমি সংক্রান্ত খবরটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশের পর শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। সংবাদমাধ্যমগুলোতে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশিত হলেও ভারত ঠিক কতটুকু জায়গা চায়, সেটি জানা ছিল না।

এদিকে ভারতের জমি চাওয়ার খবরকে অসত্য বলছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি বিবিসিকে বলেন, ‘ভারত আমাদের কাছে কোনো জমি চায়নি। যে খবরটি আপনারা জেনেছেন সেটা সম্পূর্ণ অসত্য।’

শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘ভারত মূলত যেটা চেয়েছে, সেটা হচ্ছে ত্রিপুরা বিমানবন্দরের রানওয়েতে লাইটের কমপ্লিট ফেইজ পূরণ করতে বাংলাদেশের অংশে কিছু লাইট বসাতে।’

কিন্তু ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এখনো পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্তিকর খবর প্রকাশ করে যাচ্ছে। ‘লাইভমিনট’ ভারতীয় বিমান কর্তৃপক্ষের পরিচালক বিপিন কান্ত শেঠের বরাত দিয়ে বলছে, তারা ত্রিপুরা সরকারকে অনুরোধ করেছেন বাংলাদেশের ৫২ একর জমি ব্যবহারের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা করতে।

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবকে উদ্ধৃত করে ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, রাজ্য সরকার ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে বাংলাদেশ সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

ত্রিপুরা যোগাযোগ বিভাগের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেছেন, ‘অতিরিক্ত জমিটুকু বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার হিরাপুর গ্রামের কাছে পড়েছে। আমরা একটি জরিপ করে ওই জমির ধরন বুঝতে চেষ্টা করছি। বিমানবন্দরটি হয়ে গেলে আগরতলা থেকে ঢাকা ফ্লাইট যাবে। চট্টগ্রাম, এবং সিলেটের মতো শহরেও যাবে।’

image_pdfimage_print




     এই বিভাগের আরও খবর

আমরা আছি ফেসবুকে