,

পলাশবাড়ী সরকারি কলেজের কয়েকটি মেহগনি গাছ উধাও : তদন্ত কমিটি গঠন

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি
গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলা সদরের পলাশবাড়ী সরকারি কলেজের চারিদিকে যেমন প্রাচীতে ঘেড়া তেমনি নানা ধরণের দামী বৃক্ষে রয়েছে। কলেজের সামনেই রয়েছে পুকুর। আর এই পুকুরটি চারিদিকে মেহগনি গাছে ঘেড়া ছিলো। ধীরে ধীর পুকুরটিতে গাছ শ‚ন্য হয়ে পড়তে শুরু করেছে। এই কলেজের মাঠে বর্তমান সরকারের প্রধান সহ বিগত সময়ে রাষ্ট্র প্রধানগণ এই মাঠে জনসভা ও নির্বাচনী সমাবেশ করেছেন একাধিক বার।

এই মাঠের চারিদিকের মুল্যবান গাছ গুলো আস্তে আস্তে একটি দুটি করে উধাও হওয়া শুরু হয়েছে। একটি সময় শোনা যেতো ছাত্রনেতারা গাছ কর্তন করে আর এখন শোনা যাচ্ছে কলেজের কর্মকর্তা কর্মচারিরা গাছ কর্তন করেছে।

আজ ৯ অক্টোবর বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,প্রায় ১৮ হতে ২০ দিন আগে কলেজের সামনের গেটে সামনে পুকুরের প‚র্ব পারে নতুন করে কর্তনকৃত একটি দামী মেহগনি গাছের গোড়া, ও পুকুরের সাথে সড়কের পাশে একটি গাছের গোড়া এবং অধ্যক্ষ ও প্রভাষকগণ ও অফিস ষ্ট্যাফদের ভবনের পিছনে হতে একাধিক গাছ কর্তন করে। এবং গাছের গোড়া গুলো চতুর কর্মকর্তা কর্মচারীরা তুলে ফেলে।

আরো জানা যায়, স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি ও কলেজের অফিস সহকারি আলহাজ্ব আব্দুল কাদের নেতৃত্বে কয়েকজন কর্মকর্তা ও কর্মচারী মিলে এই গাছ গুলো প্রতিনিয়ত কর্তন করেছে। গাছ কর্তনের বিষয়টি জানা জানি হলে কয়েকজন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে গেলেও বিষয়টি প্রকাশ হয়নি। আরো জানা যায়,কাদের হাজ্বী নিজে সেই সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ রাখতে অর্থ দিয়ে ম্যানেজ করেন।

গাছ কর্তনের ঘটনা সম্পর্কে আব্দুল কাদের হাজ্বীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাছ কর্তনের সাথে জড়িত নই। তিনি আরো বলেন আমি গাছ কাটার বিষয় জানি না।

এ বিষয়ে কলেজের অধ্যক্ষ শওকত আলম মীর জানান,গাছ কর্তন র বিষয়টি আমরা শুনেছি এবং শোনার পর তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

তদন্ত কমিটির প্রধান কলেজের সহযোগী অধ্যাপক অলঙ্গ মোহন রায় জানান, কেবা কাহারা পুকুর পাড়ে গাছ কর্তন করেছ এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির প্রধান করার বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তিনি আরো বলেন, তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদান করা হবে।

image_pdfimage_print











     এই বিভাগের আরও খবর

আমরা আছি ফেসবুকে