সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গাইবান্ধায় সরকারি হাসপাতালের লোকবল দিয়ে চলছে বৈধ-অবৈধ ক্লিনিক নাগরপুরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত বাঁধ ভেঙে গোবিন্দগঞ্জের ২০টি গ্রাম আকস্মিক বন্যায় নতুন করে প্লাবিত পুলিশী নির্যাতন হতে মুক্তি চায় পলাশবাড়ী রিক্সা শ্রমিকেরা পলাশবাড়ী অটোজ এর উদ্বোধন নাগেশ্বরীতে ভিজিএফ’র চাল বিতরণে অনিয়ম কুড়িগ্রামে ২৪টি  স্থানে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে ডাম্পিংয়ের কাজ অব্যাহত ভুরুঙ্গামারীতে বিএনপি নেতার হামলার ভয়ে বাড়ি ছাড়া দুই পরিবার জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে নবাবগঞ্জে মৎস্য পোনা অবমুক্তি করলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফুলছড়ির বন্যা দুর্গত ১শ’ টি পরিবারের জন্য সেনাবাহিনীর মানবিক ত্রাণ সহায়তা

করোনাভাইরাস নিয়ে ভীত না হবার ৯ কারণ

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৯ মার্চ, ২০২০
  • ৮৪ বার সংবাদটি ওয়েব থেকে শেয়ার

প্রাণঘাতী করোনভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারি আকার ধারণ করেছে। মাত্র কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে চীনের বাহিরে ৮০ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাসটি। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছে ৩ হাজার ৫৫৮ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখেরও অধিক মানুষ।

আর বড় বড় শিরোনাম দিয়ে করে করোনার আগ্রাসনের খবর প্রতিমূহুর্তেই প্রকাশ করছে সারাবিশ্বের সংবাদমাধ্যমগুলো। যা দ্রুতই ছড়িয়ে পড়ছে ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এতে করে সবার মাঝে ছড়িয়ে পড়ছে আতঙ্ক।

তবে আতঙ্কিত হওয়ারও যথেষ্ঠ কারণও আছে- চিকিৎসা সংক্রান্ত, রাজনৈতিক এবং বিশেষভাবে সামাজিক ও অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। তবে এই ভাইরাসকে প্রতিরোধ করার মতো কোন অস্ত্র এখনো বিশ্বের হাতে নেই।

এমতাস্থায় স্পেনের নাভারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি এবং ভাইরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ইগনাসিও ল্যাপেজ-গোয়েইসহ বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানীর প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে নয়টি ‘আশ্বস্ত’ হওয়ার বিষয় প্রমাণ করেছেন। এমন খবর প্রকাশ করেছে দ্য গার্ডিয়ান।

করোনাভাইরাস নিয়ে ‘আশ্বস্ত’ হওয়ার ওই নয়টি কারণ-

১. সতর্ক থাকলে করোনায় আক্রান্ত হওয়া সহজ নয়। ১৫ মিনিটের অধিক সময় ধরে আক্রান্ত ব্যক্তির শারিরীক সংস্পর্শে আসলে বা কফ-থুতু গায়ে লাগলে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকতে। আক্রান্ত ব্যক্তিকে রাস্তায় ক্রস করতে গিয়ে আক্রান্ত হওয়ার কোনোও আশঙ্কাই নেই।

২. শুধুমাত্র ঘন ঘন হাত ধোয়ার মাধ্যমেই এই ভাইরাসকে মেরে ফেলা সম্ভব।

৩. অধিকাংশ ক্ষেত্রে করোনাভাইরাস আক্রান্তের শারিরীক অসুবিধা সামান্য। স্বাভাবিক জ্বর-সর্দির মতো।

৪. আক্রান্তদের আড়াই শতাংশের কম মৃত্যু ঝুঁকিতে থাকতে পারে। যদি তারা বার্ধক্যজনিত দুর্বলতা বা অন্যান্য বড় রোগে আগে থেকেই আক্রান্ত না হন।

৫. সুস্থ-সবল মানুষের আক্রান্ত বা ‘সংকটাপন্ন’ হওয়ার হার একেবারেই কম।

৬. এই ভাইরাসে মানুষ আক্রান্ত যেমন হচ্ছে,নি  তেমভাবে সুস্থ  উঠহয়েওছে প্রতিদিন।

৭. মনে রাখা বিষয় হলো- এই ভাইরাসের উৎস, প্রকৃতি ও সংক্রমণের ধরন সাত দিনের মাথায় শনাক্ত হয়েছিল। যেখানে এইচআইভি এইডসের ক্ষেত্রে সময় লেগেছিল দুই বছর। এ ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা উদ্ভাবনের কাজও অনেকদূর এগিয়েছে।

৮. ল্যাব টেস্টের মাধ্যমে এই ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত করা সম্ভব।

৯. কর্তৃপক্ষ সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করলে ভৌগোলিকভাবেই এই ভাইরাসের বিস্তার আটকানো সম্ভব।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
২,৯৪৯
৩৭
২,৮৬২
১৩,৪৮৮
সর্বমোট
১৭৮,৪৪৩
২,২৭৫
৮৬,৪০৬
৯০৪,৫৮৪

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৩১,২৫৩,৯৭৬
সুস্থ
২২,৮৩৮,৬২৯
মৃত্যু
৯৬৫,১৯৩

এই ওয়েবসাইটে কোনও তথ্য, চিত্র, অডিও বা ভিডিও অন্য ও কোথাও প্রকাশ করা আইনত দন্ডনীয়।

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © desherbarta24.com 2017-2020

ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jpthemes2281